অনলাইন ডাটা এন্ট্রি থেকে আয়ের নানাকথা

User Rating:  / 28
PoorBest 

আপনিঅনলাইনে আয় করার কথা ভাবছেন সম্ভবত দুটি কারনে, প্রথমত, চাকরীর সুযোগ বাসম্ভাবনা নেইদ্বিতীয়ত, ব্যবসা বা স্থানীয়ভাবে কাজ করার উপায়ও নেই বিনিয়োগথেকে নানাবিধ কারনেইন্টারনেট থেকে আয় আপনার সমাধান দিতে পারেযদিওসেখানেও সমস্যা খুব কম নেই

ইন্টারনেটেআয়ের জন্য কাজ জানা প্রয়োজনপ্রোগ্রামিং থেকে শুরু করে ওয়েব ডিজাইন, গ্রাফিক ডিজাইন এসব কাজ ইন্টারনেটের কাজ হিসেবে বেশি পরিচিতআরেকটিজনপ্রিয় কাজ হচ্ছে ডাটা এন্ট্রিএকাজ তুলনামুলক সহজসাধারনভাবে কম্পিউটারব্যবহারে কিছুটা দক্ষতা থাকলেই করা যায়আয় যেহেতু ডলারে সেহেতু সেটাওচলনসইডাটা এন্ট্রি কাজের নানা দিক তুলে ধরা হচ্ছে এখানে

ডাটা এন্ট্রি কাজ আসলে কি?

ডাটাএন্ট্রি বলতে মুলত টাইপ করা বুঝায়কাগজে লেখা আছে সেটা দেখে টাইপ করেডিজিটাল ফাইল তৈরী করবেনসময়ের সাথে সাথে ডাটা এন্ট্রির ধরনও অনেকপাল্টেছেএকসময় ছাপানো লেখাকে টাইপ করা হত, বর্তমানে স্ক্যান করে ওসিআরব্যবহার করে তাকে টেক্সট এ পরিনত করা যায় প্রায় নিখুতভাবেকাজেই সরল ডাটাএন্ট্রির কাজের সুযোগ কমে গেছেযে কাজগুলি স্ক্যান করে ডিজিটাইজ করা যায়না সেগুলিই এখনো টাইপ করতে হয়

বর্তমানেরডাটা এন্ট্রির কাজের মধ্যে রয়েছে বিশেষ কিছু শর্তযেমন লেখাকে ওয়ার্ডডকুমেন্ট বা এক্সেল ডকুমেন্ট কিংবা ডাটাবেজ ফাইল বানাতে হবেসাধারনত উতসহিসেবে আপনাকে দেয়া হবে পিডিএফ ফাইলসেটা টাইপ করা, প্রিন্ট করা ফরম, হাতের লেখা স্ক্যান করা  ইত্যাদি যে কোন কিছুই হতে পারেবর্তমানে ডাটাএন্ট্রি বলতে মুলত পিডিএফ ফাইল দেখে টাইপ করাই বুঝায়কখনো কখনো এমন কাজপেতে পারেন যেখানে হয়ত পিডিএফ থেকে অন্য ফরম্যাটে নেয়ার সফটঅয়্যার ব্যবহারকরে মুল কাজ করা যায়, তাহলেও আপনাকে টাইপ করতে হবে এটা ধরে নেয়াই ভাল

কি শিখতে হবে

ডাটাএন্ট্রি কাজের সবচেয়ে বড় অংশ হচ্ছে ওয়ার্ড ডকুমেন্টে পরিনত করাকাজেইআপনার প্রথমেই মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে দক্ষতা বাড়াতে হবেসেইসাথে দ্রুত এবংনির্ভুল টাইপ করার দক্ষতা বাড়াতে হবেযত বেশি কাজ করবেন আয় তত বেশি, আরভুল কাজের জন্য টাকা পাবেন না

আগেযেমন উল্লেখ করা হয়েছে, অনেক সময়ই বলা হবে এক্সেল বা ডাটাবেজ (এক্সেস)ফাইল তৈরী করতে হবেকাজেই এক্সেল এবং এক্সেস জানাও জরুরী

কি কি থাকতে হবে

অনলাইনডাটা এন্ট্রি কাজের জন্য কম্পিউটার, ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়াও প্রিন্টারপ্রয়োজন হতে পারেযদি দেখে টাইপ করতে হয় তাহলে ডকুমেন্ট প্রিন্ট করে সেটাদেখে টাইপ করা সুবিধে জনক

টাকাপাওয়ার জন্য ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবেকোন প্রতিস্ঠান কিভাবে টাকা দেয়সেটাও আগেই জেনে নিনবাংলাদেশে যেহেতু পেপল ব্যবহারের অনুমতি নেই সেহেতুঅন্য গ্রহনযোগ্য পথ আছে কিনা জেনে নেয়া জরুরীটাকা পাওয়ার বিভিন্ন পদ্ধতিএবং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট সম্পর্কে লেখা রয়েছে বাংলা-টিউটর সাইটে

কাজ কোথায় পাবেন, কিভাবে পাবেন

ফ্রিল্যান্সার, ওডেস্ক, স্ক্রিপাটল্যান্স এর মত ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলি কাজ পাওয়ার সবচেয়েভাল যায়গাবিনামুল্যে তাদের সদস্য হয়ে কাজ পাওয়া যায়যদিও ওডেস্ক এবংফ্রিল্যান্সারে বিনামুল্যের সদস্যের জন্য কাজের সংখ্যার মাসিক সীমাবদ্ধতারয়েছেকিছু টাকা দিয়ে সদস্য হলে আরো বেশি কাজের জন্য চেষ্টা করতে পারেন

প্রথমেতাদের সাইটে গিয়ে ফরম পুরন করে সদস্য হোনএরপর কাজের তালিকা দেখে কোন কাজকত টাকায় করতে চান জানান (বিড করা)যার কাজ তিনি আপনার দেয়া দামেসন্তুষ্ট হলে আপনার সাথে যোগাযোগ করবেনদুজনের মধ্যে সমঝতা হলে আপনাকে কাজদেয়া হবে

কাজেরবর্ননা কিভাবে দেয়া থাকে জানার জন্য এই সাইটের ডানদিকের সাইডবারেফ্রিল্যান্সার সাইটের উদাহরন দেখুনকোন কাজ পছন্দ সরাসরি এখানে ক্লিক করেসেই কাজের জন্য বিড করতে পারেন

বিডকরার (সাধারন টেন্ডারের সাথে তুলনা করতে পারেন) কাজটি জটিল মনে হতে পারেযার কাজ তিনি চান কম টাকায় কাজ করাতে, কাজেই সেখানে প্রথমে দেখা হবে আপনিকত কম টাকায় কাজটি করবেনএরপর যাচাই করা হবে আপনি কাজটি ঠিকভাবে করতেপারবেন কি-নাএই দুই পরীক্ষায় উত্তির্ন হওয়ার জন্য কিছু অভিজ্ঞতা প্রয়োজনহয়চেষ্টা করলে সাথেসাথে কাজ পাবেন এটা ধরে না নিয়ে ক্রমাগত চেষ্টা করেযাওয়ার মানষিকতা নিয়ে কাজে হাত দিন

কিভাবে দাম ঠিক করবেন

প্রথমঅবস্থায় দাম ঠিক করা নিয়ে সমস্যায় পড়েন প্রায় সকলেইডাটা এন্ট্রি কাজেরদাম হিসেব করা হয় দুভাবে, নির্দিষ্ট কাজের জন্য নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ (ফিক্সড) এবং ঘন্টাপ্রতি অর্থশুরুতে ফিক্সড রেটে কাজ করাই ভালঘন্টাপ্রতি কাজের জন্য বেশ কিছু নিয়ম মানতে হয়, আপনি উল্লেখ করা ঘন্টা কাজকরেছেন কিনা যাচাইয়ের জন্য মনিটরিং সফটঅয়্যার ব্যবহার করতে হয়এছাড়া আপনারহিসেবেও ভুল হতে পারেসাধারন টেক্সট টাইপে যে সময় প্রয়োজন হয় অপরিচিতশব্দ, নাম ইত্যাদি টাইপে অনেক বেশি সময় প্রয়োজন হয়

অন্যযারা বিড করেছে তাদের মুল্য দেখে আপনি কত টাকায় করতে চান সেটা ঠিক করতেপারেনআবারও উল্লেখ করতে হচ্ছে, শুরুতে যতটা সম্ভব কম টাকায় কাজ করুনঅভিজ্ঞতা বাড়লে মজুরী বাড়ানোর সুযোগ পাবেন

কত আয় করা সম্ভব

কাজেরযেহেতু নানারকম ধরন আছে সেহেতু ডাটা এন্ট্রি করে কত আয় করা সম্ভব এককথায়বলা কঠিনসাধারনভাবে ধরা হয় ঘন্টাপ্রতি ২ থেকে ৫ ডলারযদি ঘন্টাপ্রতি ২ডলার হিসেবে দৈনিক ৫ ঘন্টা কাজ করেন তাহলে হিসেব দাড়ায় মাসে ৩০০ ডলারদক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা বাড়ার সাথেসাথে এই পরিমান বাড়ার কথা

অনলাইনেকাজ বা ফ্রিল্যান্সিং বর্তমানে অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং এই কাজের ক্ষেত্রদ্রুত প্রসারিত হচ্ছেআপনি যত দ্রুত কাজে হাত দেবেন ততটাই এগিয়ে থাকারসম্ভাবনাবিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইটে লক্ষ করলে দেখা যায় বাংলাদেশীরসংখ্যা একেবারেই সামান্যঅথচ অর্থনৈতিক-সামাজিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশীরনামই বেশি হতে পারত

যদিঅপেক্ষা করে থাকেন রাষ্ট্র আপনার জন্য সুযোগ করে দেবে তাহলে হয়ত সময় নষ্টকরছেনগত ২০ বছরে কথা বলা ছাড়া বাস্তবে আইটি ক্ষেত্রে সরকার বানীতিনির্ধারকরা কিছু করেননিআগামীতেও কথাই বলে যাবেনআপনার দায়িত্ব নিতেহবে আপনাকেই

অনলাইন ডাটা এন্ট্রি হতে পারে কাজের শুরু